কল সেন্টার : ১৬৪৯৬ EN
    mujib_logo
প্রি-পেইড মিটার সংক্রান্ত অভিযোগ: ০১৭০৩৭২৯৫০৫, ০১৭০৩৭২৯৪৫১, ০১৭০৩৭২৯৩৮৯, ০১৭৮৮৫৬৮২৭৬, ০১৭৮৮৫৬৭২৯৬, ০১৩০০২৮৭৫২০ (২৪ ঘন্টা) , উপব্যবস্থাপক-০১৯৫২২৭৭৩৫৭, ব্যবস্থাপক-০১৯৫২২৭৭৩৭৯, প্রকল্প পরিচালক- ০১৯৫৮০৯৫২০৮, জরুরী গ্যাস নিয়ন্ত্রণ শাখা- দক্ষিণ: অভিযোগ কেন্দ্র (ঢাকা দক্ষিণ) - ০১৯৫৫৫০০৪৯৯, ০১৯৫৫৫০০৫০০, +৮৮০২-৪১০৭০৯৫১, +৮৮০২-৪১০৭০৯৫২ (২৪ ঘন্টা), ব্যবস্থাপক- ০১৯৫২২৭৭৪১২, জরুরী গ্যাস নিয়ন্ত্রণ শাখা-উত্তর: অভিযোগ কেন্দ্র (ঢাকা উত্তর)- ০১৯৫৫৫০০৪৯৭, ০১৯৫৫৫০০৪৯৮, ৫৫০৪৫১১৩, ৫৫০৪৫১১৪ (২৪ ঘন্টা), ব্যবস্থাপক- ০১৯৩৯৯২১০২৬, উপমহাব্যবস্থাপক (জরুরী গ্যাস নিয়ন্ত্রণ বিভাগ)- ০১৯৩৯৯২১১৭৩। গ্যাস সংক্রান্ত যে কোন তথ্য/ অভিযোগের জন্য তিতাস গ্যাস কল সেন্টার নম্বর 09612316496 বা 16496 এ যোগাযোগ করা যাবে। দুর্নীতি দমন কমিশন হটলাইন নম্বর ১০৬ ‘মুজিব বর্ষ’ উপলক্ষ্যে তিতাস গ্যাসের লক্ষ্য “অবৈধ সংযোগ মুক্ত গ্যাস বিতরন ব্যবস্থা” করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত যেকোনো তথ্য বা স্বাস্থ্যসেবা পেতে কল করুন ৩৩৩ অথবা ১৬২৬৩ নম্বরে এবং ভিজিট করুন corona.gov.bd উৎসে আয়কর কর্তনকারী গ্রাহক ব্যতীত সকল মিটারযুক্ত গ্রাহক ও মিটারবিহীন আবাসিক গ্রাহক মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিস (বর্তমানে 'রকেট', ’নগদ’ ও 'বিকাশ') এর মাধ্যমে গ্যাস বিল পরিশোধ করতে পারবেন। ১ অক্টোবর ২০২০ হতে আইসিবি ইসলামী ব্যাংকে গ্যাসবিল গ্রহণ অনিবার্য কারন বশতঃ বন্ধ রাখা হয়েছে।
কোম্পানির নাম : তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিসন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড (টিজিটিডিসিএল)
কার্যক্রম শুরুর তারিখ : নভেম্বর ২০, ১৯৬৪
নিবন্ধিত অফিস : তিতাস গ্যাস ভবন, ১০৫ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,কাওরান বাজার বাণিজ্যিক এলাকা, ঢাকা-১২১৫ .
কর্পোরেশন : বাংলাদেশ তৈল, গ্যাস ও খনিজ কর্পোরেশন(পেট্রোবাংলা)
প্রশাসনিক মন্ত্রণালয় : বিদ্যুৎ, জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়
তিতাস অধিভূক্ত এলাকা : বৃহত্তর ঢাকা ও বৃহত্তর ময়মনসিংহ
প্রথম পাইপলাইন নির্মিত : ব্রাহ্মণবাড়িয়া হতে ডেমরা ১৪  "ডিএন X১০০ পিএসআইজি X ৫৮ মাইলস
প্রথম গ্যাস সরবরাহ : এপ্রিল ২৮, ১৯৬৮ সিদ্ধিরগঞ্জ তাপবিদ্যুত কেন্দ্র থেকে
অনুমোদিত মূলধন : ২,০০০.০০ কোটি টাকা।
পরিশোধিত মূলধন(৩০ জুন ২০২২ অনুসারে) : ৯৮৯.২২ কোটি টাকা।
গ্যাস বিক্রয় (অর্থবছরে ২০২১-২২) : ১৫,৬৫৭.২৮৫ এমএমসিএম
বিক্রয় রাজস্ব (অর্থবছরে ২০২১-২২) : ১৮,৩২৭.৩২ কোটি টাকা
জাতীয় রাজস্ব আদায় : ৬৪০.৮৫ কোটি টাকা
ক্রেতাদের সংখ্যা (৩০ জুন ২০২২ অনুসারে): মোট ২৮,৭৭,৬০৪
পাওয়ার (সরকার) ১৭ টি
পাওয়ার (ব্যক্তিগত) ৩০ টি
সার ০৩ টি
শিল্প ৫,৩৯৬ টি
সিএনজি ৩৯৬ টি
ক্যাপটিভ পাওয়ার ১৭৩৬ টি
বাণিজ্যিক ১২,০৭৮ টি
আবাসিক ২৮,৫৭,৯৩৬ টি
ইটের ভাটা ১২ টি
নির্মিত পাইপলাইন (৩০ জুন ২০২২ অনুসারে): ১৩,৩২০.৩৯ কিমি
সেলস মার্কেট শেয়ার: ৫৫%
গ্যাস সরবরাহ (ক্ষেত্র) উৎস : তিতাস,হবিগঞ্জ,নরসিংদী,কৈলাসটিলা,বিবিয়ানা,মৌলভীবাজার,শ্রীকাইল এবং বাংগুরা গ্যাস ক্ষেত্র, বাখরাবাদ, মেঘনা এবং এলএনজি।
টার্মিনাল : মহেশখালী
জনশক্তি (৩০ জুন ২০২২ অনুসারে): ২,০৪০
কর্মকর্তা : ৯৮৯
কর্মচারী: ১,০৫১
প্রধান নির্বাহী : প্রকৌ. মো. হারুনুর রশিদ মোল্লাহ্
ডিএসই সঙ্গে তালিকাভুক্ত : জুন ৯, ২০০৮
সিএসই সঙ্গে তালিকাভুক্ত : জুন ১৯, ২০০৮

১৯৬২ সালে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তিতাস নদীর তীরে বিরাট গ্যাস ক্ষেত্র আবিষ্কৃত হওয়ার সাথে সাথে বাংলাদেশে প্রাকৃতিক গ্যাস ব্যবহারে এক নতুন দিগন্তের সূচনা হয় এবং ১৯৬৪ সালের ২০ নভেম্বর তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিসন এন্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানী লিমিটেড জন্মলাভ করেছে। তৎকালীন সরকারি প্রতিষ্ঠান শিল্প উন্নয়ন সংস্থা কর্তৃক ১৪″ব্যাস সম্পন্ন ৫৮ মাইল দীর্ঘ তিতাস-ডেমরা সঞ্চালন পাইপলাইন নির্মাণের পর ১৯৬৮ সালের ২৮ এপ্রিল সিদ্ধিরগঞ্জ তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে গ্যাস সরবরাহের মাধ্যমে কোম্পানী বাণিজ্যিক কার্যক্রম শুরু করে। একটি প্রগতিশীল জাতীয় প্রতিষ্ঠান হিসেবে তিতাস গ্যাস তার সেবার মাধ্যমে জনগণের আস্থাভাজন হবার গৌরব অর্জন করেছে।

 

Top